টেলিকম বিশেষ প্রতিবেদন

লাগাম দেয়া হয়েছে সিম ক্রয়েঃ এক এনআইডি তে সর্বোচ্চ ১৫ টি সিম কেনা যাবে।

টেকনোবার্তা – লাগাম দেয়া হয়েছে সিম ক্রয়ের ক্ষেত্রে। এখন থেকে এক এনআইডি তে সর্বোচ্চ ১৫টি সিম ক্রয় করা যাবে।

আর এই ১৫ সিমের মধ্য পোস্টপেইড বা প্রিপেইড বলে আলাদা কোন প্যাকেজ থাকছে না। যেকোনো ধরনের সিম (পোস্টপেইড বা প্রিপেইড) এবং সকল অপারেটর মিলিয়েই সর্বমোট ১৫টি সিম কেনা যাবে।

বিটিআরসি, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগ ও দপ্তরের প্রতিনিধিদের নিয়ে রোববার এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত দেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। 

যদিও এর আগে বৃহস্পতিবার টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন একটি জাতীয় পরিচয়পত্রের অধীনে সর্বোচ্চ ২০টি সিম কেনা যাবে। কিন্তু দুই দিন যেতে না যেতেই সেটি নেমে এসেছে ১৫টিতে। এখন থেকে একটি NID  এর অধীনে সর্বমোট ১৫ টি সিম রাখা যাবে।

আরো জানা যায় দু’একদিনের মধ্যে এ বিষয়ে বিষদ নির্দেশনা অপারেটরগুলোর কাছে পাঠানো হবে। কি কি শর্তে এ সব সিম বিক্রয় করবে তা এ নির্দেশনার মাধ্যমে জানানো হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট বিভাগের এক কর্মকর্তা।

এক এনআইডি তে সর্বোচ্চ

ইতোপূর্বে একটি ন্যাশনাল আইডিএর বিপরীতে কখনও ১৫টি, যার মধ্যে আবার পাঁচটির বেশি প্রিপেইড হতে পারবে। আবার কখনও ২০টি সিম নিবন্ধনের কথা বলা হয়েছিল।

তবে এসব সিদ্ধান্তগুলো শেষ পর্যন্ত কার্যকর করা হয়নি। কারণ গত বছর মাঝামাঝি সময়ে প্রথম যখন একটি পরিচয়পত্রের বিপরীতে সর্বোচ্চ ২০টি সিম নিবন্ধনের কথা বলে দেওয়া হয় তখন ওই সময়েই বায়োমেট্রিক নিবন্ধনের প্রক্রিয়া শেষ হয়ে গেছে।

সে কারণে তার আগে একটি জাতীয় পরিচয়পত্রের বিপরীতে অনেক গ্রাহক হয়তো এই সংখ্যাধিক সিমের নিবন্ধন করিয়ে নিয়েছেন, এমনটা বলছিলেন টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের এক কর্মকর্তা। তবে এখন থেকে আর এক NID তে ১৫ টি সিমের বেশী নিবন্ধন করা যাবে না।